প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি: বিএনপি নেতা চাঁদ রিমান্ডে

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকির অভিযোগে রাজধানীর চকবাজার থানায় দায়ের করা সন্ত্রাসবিরোধ আইনের মামলায় রাজশাহীর বিএনপি নেতা আবু সাঈদ চাঁদের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। বুধবার (৭ জুন) ঢাকা অ্যাডিশনাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট হাসিবুল হকের আদালত তার রিমান্ডের আদেশ দেন। গত ২৮ মে চাঁদকে গ্রেপ্তার দেখানোসহ ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চকবাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক জাকির হোসেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত ৭ জুন আসামির উপস্থিতিতে গ্রেপ্তার দেখানোসহ রিমান্ড শুনানির তারিখ ধার্য করেন। এদিন, তাকে আদালতে হাজির করা হয়। প্রথমে তাকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করা হয়। এরপর রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। তার পক্ষে রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন মোসলেহ উদ্দিন জসিমসহ কয়েকজন আইনজীবী। শুনানিতে তারা বলেন, এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে ৯ জেলায় ২০টি মামলা হয়েছে। বক্তব্যটা ছিল তার রাজনৈতিকভাবে কথার কথা। কবরস্থানে পাঠানো মানে সরকার থাকবে না বুঝাতে চেয়েছেন। দল, রাজনীতি থাকলে এমন বক্তব্য থাকবে। আর মূল মামলা যেটা রাজশাহীতে হয়েছে ওই মামলায় তাকে ৮ দিন রিমান্ডে নেওয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। পুলিশ তথ্য পেয়ে গেছে। তিনি বয়স্ক, অসুস্থ মানুষ। বক্তব্যকে ভুল ব্যাখা করে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। তিনি পরিস্থিতির শিকার। রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন প্রার্থনা করছি। শুনানি শেষে আদালত তার দুই দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন। গত ২৪ মে রাজধানীর চকবাজার থানায় বিএনপি নেতা চাঁদের বিরুদ্ধে এ মামলা করেন আশিকুর রহমান অনু নামে এক ছাত্রলীগ নেতা। এর আগে গত ১৯ মে রাজশাহীর পুঠিয়ার শিবপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিএনপির সমাবেশে দেওয়া বক্তব্যে আবু সাঈদ চাঁদ বলেন, আর ২৭ দফা বা ১০ দফা নয়। শেখ হাসিনাকে কবরস্থানে পাঠাতে হবে। তার এ বক্তব্যের পর ২৫ মে রাজশাহী পুলিশ চাঁদকে গ্রেপ্তার করে। এরপর এ মামলায় তাকে দুই দফা রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে কারাগারে পাঠানো হয়। পরে তাকে চকবাজার থানার মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোসহ রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ।