ভাসানচরে রোহিঙ্গা কিশোরকে গলা কেটে হত্যা, গ্রেপ্তার ২

পূর্ব শক্রতার জেরে হাতিয়ার ভাসানচরে মোহাম্মদ জাহিদ হোসেন (১৫) নামে এক রোহিঙ্গা কিশোরকে কলা কেটে হত্যার ঘটনায় দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১৬ জুন) দুপুরের দিকে আসামিদের নোয়াখালী চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়। নিহত মোহাম্মদ জাহিদ হোসেন ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ৯০ নম্বর ক্লাস্টারের মৃত আবদুল মালেকের ছেলে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- ভাসানচর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৮১ নম্বর ক্লাস্টারের দিল মোহাম্মদের ছেলে মোহাম্মদ কায়সার (১৬) ও ২৭ নম্বর ক্লাস্টারের নুরুল হকের ছেলে ইউসুফ জালাল (১৬)। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ৮ জুন রাতে ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বেড়িবাঁধের কাছে জাহিদকে গলা কেটে হত্যা করেন তায়সার ও ইউসুফ। গত ১২ জুন ভাসানচরের বেড়িবাঁধের পাশ থেকে জাহিদের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে নিহতের ভাই মোস্তাকিমের দায়ের করা হত্যা মামলার তদন্ত করতে গিয়ে রোহিঙ্গা কিশোর কায়সার ও জালালের সম্পৃক্তা পাওয়া যায়। আসামিদের গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। দুইজনই হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন। ভাসানচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হুমায়ুন কবির জানান, গ্রেপ্তারকৃতরা পূর্ব শত্রুতার জেরে জাহিদকে ভাসানচর আশ্রয়ণ প্রকল্পের বেড়িবাঁধের কাছে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর দুজনে মিলে গলা ও হাত-পায়ের রগ কেটে জাহিদকে হত্যা করে।