গৃহবধূ হত্যার ২৮ বছর পর দু’জনের যাবজ্জীবন

দীর্ঘ ২৮ বছর পর চকরিয়ার রাজাখালীতে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূ হত্যা মামলায় দু‘জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও ২ বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

মামলায় অভিযুক্ত একজন মারা যাওয়ায় তাকে সাজা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। বুধবার (২৬ এপ্রিল) দুপুরে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-২ এর বিচারক সাইফুল এলাহী এ রায় দেন বলে জানিয়েছেন আদালতের অতিরিক্ত পিপি সুলতানুল আলম চৌধুরী।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, নিহতের জা খালেদা বেগম এবং তার ভাই রুহুল আমিন। রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্তরা কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

আদালতের অতিরিক্ত পিপি সুলতানুল আলম চৌধুরী জানান, ১৯৯৫ সালের ২৬ জানুয়ারি রাজাখালীর রব্বত আলী মাতবর পাড়ায় বাদীর মেয়ে ও হত্যাকাণ্ডের শিকার রোজিনা আক্তার রোজিকে যৌতুকের জন্য নির্মমভাবে হত্যা করেন মনিরুজ্জামানের ছেলে নিহতের ভাসুর আবদুল খালেক, তার স্ত্রী খালেদা বেগম এবং শ্যালক রুহুল আমিনসহ কয়েকজন।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে ৬ জনের বিরুদ্ধে চকরিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ ২৮ বছর পর (এসটি ১৬/২০০০ মামলাটি) সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে অভিযুক্ত হন তিনজন। এরা হলেন, আবদুল খালেক, খালেদা বেগম এবং রুহুল আমিন। বুধবার (২৬ এপ্রিল) অভিযুক্ত দুজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এ সময় আসামি রুহুল আমিন ও খালেদা বেগম আদালতে উপস্থিত ছিলেন। অপর অভিযুক্ত আবদুল খালেক মৃত্যুবরণ করায় তাকে সাজা থেকে বাদ দেওয়া হয়।