অবকাঠামো উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে আমিরাত

পারস্পরিক স্বার্থে বাংলাদেশের সমুদ্র বন্দরসহ অবকাঠামো উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সংযুক্ত আরব আমিরাত।বুধবার (১৭ মে) গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে বাংলাদেশে নবনিযুক্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত আব্দুল্লা আলি আব্দুল্লা খাসাইফ আলহমোওদি (Abdulla Ali Abdulla Khaseif Al Hmoudi) এ কথা বলেন। পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত বলেন, তার দেশ বাংলাদেশের সঙ্গে সহযোগিতামূলক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও সামনে এগিয়ে নেবে। এ প্রসঙ্গে এভিয়েশন সেক্টরে সহযোগিতা বিষয়ে বেসামরিক বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলীর সঙ্গে বৈঠকের বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন তিনি। ১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধুর সফরের মধ্যে দিয়ে দুই দেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের মধ্যকার দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ভিত্তি স্থাপনের কথা স্মরণ করেন রাষ্ট্রদূত। আব্দুল্লা আলি আব্দুল্লা খাসাইফ আলহমোওদি বলেন, পরে ১৯৮৪ সালে শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ান ঢাকা সফর করেন এবং দুই দেশের সম্পর্ক শক্ত ভিত্তির ওপর স্থাপন করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী নভেম্বরে দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া কপ-২৮ সম্মেলনে সংযুক্ত আরব আমিরাতের নেতৃত্বের প্রশংসা করেন। (আগামী ৩০ নভেম্বর থেকে ১২ ডিসেম্বর ২০২৩ পর্যন্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে ‘কপ২৮’ আয়োজিত হবে। ) চাকরির উদ্দেশ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে যাওয়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের আরবি ভাষা শেখার ওপর গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রী। নতুন রাষ্ট্রদূতকে বাংলাদেশে স্বাগত জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী দায়িত্বপালনকালে তাকে সব ধরনের সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন। রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংযুক্ত আরব আমিরাতের নেতাকে শুভেচ্ছা জানান। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, অ্যাম্বাসেডর অ্যাট লার্জ মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন এবং প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া।