বিএনপি-জামায়াত ও যুক্তরাষ্ট্রের ষড়যন্ত্র একই সূত্রে গাঁথা: বাদশা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমতাচ্যুত করতে বিএনপি-জামায়াত ও যুক্তরাষ্ট্রের চলমান অভিন্ন ষড়যন্ত্র “একই সূত্রে গাঁথা” বলে মন্তব্য করেছেন কেন্দ্রীয় ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম নেতা ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা।

বুধবার সকালে শহিদ জামিল আখতার রতনের ৩৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ প্রাঙ্গনে মহানগর ছাত্রমৈত্রীর উদ্যোগে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

এর আগে আজীবন বিপ্লবী শহিদ জামিলের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাজশাহী-২ আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। পরে পর্যায়ক্রমে মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টি, মহানগর যুবমৈত্রী ও মহানগর ছাত্রমৈত্রীসহ অসাম্প্রদায়িক সমমনা সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

সমাবেশে ছাত্রমৈত্রীর প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি এমপি ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, “শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র পর্যন্ত ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। এটি সেই আমেরিকা, যে বিশ্বব্যাপী রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করে রেখেছে। তারা বাংলাদেশে যাদের স্বার্থে ষড়যন্ত্রে মেতেছে, তারা এদেশের স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি। বিএনপির চলমান ষড়যন্ত্র, জামায়াতের ষড়যন্ত্র ও আমেরিকার করা ষড়যন্ত্র “একই সূত্রে” গাঁথা। এদের বিরুদ্ধে আমরা কি করছি? সরকারি দলই বা কি করছে? আমরা যারা নিজেদের মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি হিসেবে দাবি করি, তারা শহিদ জামিলের আদর্শ ধারণ করে তাদের বিরুদ্ধে লড়তে না পারলে কোন লাভ হবে না।”

নিজ দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে এই দলীয় প্রধান বলেন, “একটি দিনে শহিদ জামিলের আদর্শ ধারণ করবো; আর বছরজুড়ে নিজের মতো চলবো, এমনটি জামিলের আদর্শের প্রতি আনুগত্যের প্রতিফলন নয়। জামিলের আদর্শ পুরোটাই ধারণ করতে না পারলে আমাদের সব রাজনীতি বৃথা হয়ে যাবে। মনে রাখতে হবে, চলমান ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে লড়তে হলে জামিলের আদর্শ ছাড়া আমাদের আর কোন হাতিয়ার নেই।”

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (রাকসু) সাবেক এই ভিপি আরও বলেন, “আমরা হয়তো ক্ষমতার রাজনীতি দ্বারা প্রভাবিত হচ্ছি! আমরা মনে করছি, রাজনীতি করতে হলে ব্যক্তিগতভাবে “কিছু” পেতে হবে। যদি সেটি না পাই, তাহলে খারাপ হয়ে যাবে। আপনারা বলেন, এখানে শহিদ জামিলের চেতনার দৃষ্টিভঙ্গি কোথায় আছে? আমরা যে জামিলের রক্তমাখা শার্টের প্রতিজ্ঞার কথা বলি; সেটি কি এখানে প্রতিফলিত হচ্ছে? এসব আমাদের অবশ্যই উপলব্ধি করতে হবে। শহিদ জামিলের আদর্শ পুরোপুরি ধারণ না করলে জামিল দিবসের সার্থকতা কোথাও খুঁজে পাওয়া যাবে না।”

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন শহিদ জামিল ব্রিগেডের প্রধান সমন্বয়ক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু। বক্তব্য দেন, বাংলাদেশ যুবমৈত্রীর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি তৌহিদুর রহমান, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রনেতা আশরাফুল হক তোতা, সাবেক ছাত্রনেতা মোর্শেদ হাসান চুন্না, মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য আব্দুল মতিন, নাজমুল করিম অপু, মনির উদ্দিন পান্না, মহানগর যুবমৈত্রীর সভাপতি মতিউর রহমান মতি প্রমুখ। সমাবেশ সঞ্চালনা করেন ছাত্রমৈত্রীর নগরের সভাপতি ওহিদুর রহমান ওহি।

এ সময় সাবেক ছাত্রনেতা মনোয়ার হোসেন সেলিম, মহানগর যুবমৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক শামীম ইমতিয়াজ, ছাত্রমৈত্রীর মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিজয় সরকার, সহ-সভাপতি সাকিব আল হাসান, রাজপাড়া থানার সাধারণ সম্পাদক ইফতিক হাসান, বোয়ালিয়া থানার সভাপতি অমিত সরকার, শাহমখদুম থানার সভাপতি আমির হামজা, রাজশাহী জেলার আহ্বায়ক মো: পলাশ, নিউ গভঃ ডিগ্রী কলেজের সভাপতি জানে আলম আরিয়ানসহ পার্টি ও বন্ধু সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের সাবেক ও বর্তমান নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।