শরীফুল রাজের দুঃখ প্রকাশ

গত ২৯ মে দিবাগত রাতে রাজের ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে বেশ কিছু আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। এসব ছবি ও ভিডিওতে মদ্যপ অবস্থায় দেখা গেছে অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামাল, তানজিন তিশা ও নাজিফা তুষিকে। অসংলগ্ন আচরণ ও অশ্লীল ভাষায় কথা বলতে শোনা গেছে সুনেরাহকে। এ ঘটনা নিয়ে জোর চর্চা চলছে, বিষয়টি নিয়ে বিব্রত নায়ক শরীফুল রাজ। এ ঘটনার একদিন পর বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে দীর্ঘ স্ট্যাটাস দিয়েছেন শরীফুল রাজ। তবে কে বা কারা তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে ভিডিওগুলো ছড়িয়েছে এ নিয়ে কিছু না বললেও তাকে হেনস্তা করার জন্যই এগুলো ছড়িয়েছে বলে দাবি রাজের। লেখার শুরুতে রাজ বলেন, ‘মানুষ প্রতি মুহূর্তে একটু একটু করে পরিণত হয়। জন্মের পর নিজের পায়ে চলতে শিখতেও কয়েক বছর লেগে যায়। আর ঠিকঠাক কথা বলা শিখতে লেগে যায় আরো কিছু বছর। কিন্তু এই বলা আর চলার যাত্রা কখনো শেষ হয় না। তবে এই যাত্রায় আমরা কিছু মানুষের সঙ্গে পরিচিত হই, যাদের সাথে সুখ, দুঃখ, কাজের আলাপ কিংবা কাজহীন দিনের আলাপ, সুস্থতা এবং পাগলামী সবকিছুই ভাগ করে নেয়া যায়। যাদের সাথে চলার বা কথা বলার বিশেষ কোনো শর্ত থাকে না। শর্ত থাকে কেবল একটাই— সেটার নাম বন্ধুত্ব।’ বন্ধুত্ব বিষয়টি ব্যাখ্যা করে রাজ বলেন, ‘নিশ্চয়ই আপনাদের প্রত্যেকেরই এমন অনেক বন্ধু রয়েছে- যাদের সাথে আপনারা আভিধানিক শব্দে কথা বলেন না, একসাথে পথ চলার সময় ভবিষ্যৎ ভাবনা নিয়ে পথ চলেন না। যাদের সাথে অনেক বেফাঁস কথা বলেন, কারণ বন্ধুত্ব তো এমনই। লিঙ্গ, বর্ণ, বয়সসহ সকল সীমারেখার উপরে মানুষের বন্ধুত্ব। কিন্তু সমস্যা হয়, যখন কেউ অসৎ উদ্দেশ্যে বন্ধুত্বের মতো সম্পর্কের মাঝখানে লৈঙ্গিক পরিচয়ের সীমারেখা টেনে, ব্যাপারটাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চায়। যখন কেউ বন্ধুদের মধ্যকার দ্বিধাহীন আড্ডার আলাপ ‘টক অব দ্য টাউনে’ পরিণত করে। আমিও তেমনই এক সমস্যায় পড়েছি।’ নীরবতা মানেই দুর্বলতা নয়— তা উল্লেখ করে রাজ বলেন, ‘আমি গত কয়েকদিন যাবৎ সিনেমার ডাবিং নিয়ে ব্যস্ত, আমার সিনেমার কিছু গল্পের স্ক্রিপ্ট রিডিং করার কথা, এইগুলা নিয়েই আমি ঠিকমতো সময় দিতে পারছি না। যখনই সময় পাচ্ছি গল্পের ভিতরে ঢুকে যাচ্ছি, তার মধ্য হঠাৎ করে কে বা কারা এসব করে আমাকে হেনস্তার শিকার করছে, যা ভাবতেই আমি হতবাক হয়ে গেলাম। আমাকে নিয়ে শেষ যতদিন থেকে নানাবিধ সত্য-মিথ্যার মিশ্রণে ঘটনার চাউর করছে, আমি তার শুরু থেকেই নীরব ছিলাম। কিন্তু নীরবতা মানেই দুর্বলতা না।’ রাজ মনে করেন তাকে হেনস্তা করার জন্য এসব ভিডিও ফাঁস করা হয়েছে। তা জানিয়ে এই নায়ক বলেন, ‘আমার ফেসবুক প্রোফাইলের পাসওয়ার্ড/অ্যাকসেস এমন কারো কাছে আছে অথবা হ্যাক করে কেউ আমার দীর্ঘকালের বন্ধু ও সহকর্মীদের সঙ্গের নিতান্ত বন্ধুত্বের আড্ডার ঘটনা লিক করে দেয়। যে বা যারা এই কাজ করেছে, তাদের উদ্দেশ্য ছিল আমাদের হেনস্তা করা। হয়ত তারা সফলও হয়েছে।’ তিশা-সুনেরাহ-তুষির কাছে দুঃখ প্রকাশ করে রাজ বলেন, ‘আমি আমার তিন বন্ধু ও সহকর্মীর কাছে শর্তহীন দুঃখ প্রকাশ করছি; যারা আমার খুব ভালো বন্ধু দীর্ঘদিনের। সেই বন্ধুত্বের কোনো লিঙ্গ নেই। আমার কারণে তাদের হেনস্তার শিকার হতে হলো বলে। আমার সকল শুভাকাঙ্ক্ষী, সমর্থক ও সমালোচকদের কাছেও আমি দুঃখ প্রকাশ করছি- বন্ধুদের আড্ডার ঘটনা নোংরা উদ্দ্যেশে স্প্রেড করে মিসলিড করা হয়েছে বলে।’ দোয়া চেয়ে রাজ বলেন, ‘বহুবার হোঁচট খেয়েই তো হাঁটতে শিখেছি! আবারো হোঁচট খেলাম। আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসা সাথে থাকলে নিশ্চয় আরো পরিণত হব, শিখব অতীতের ভুল থেকে। আমাকে আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসায় রাখবেন। কারণ আপনাদের সমর্থন ছাড়া একজন শরিফুল রাজ কিছুই নয়। জগতের সকল প্রাণী সুখী হোক। সবাইকে ভালোবাসা ও শুভকামনা।’রাইজিংবিডি.কম