সানি দেওলকে কেন সজোরে থাপ্পড় মেরেছিলেন সোহা আলী খান?

সানি দেওল অভিনীত আলোচিত সিনেমা ‘ঘায়েল’। নব্বই দশকে বক্স অফিস কাঁপানো অন্যতম হিন্দি সিনেমা এটি। রাজকুমার সন্তোষী পরিচালিত অ্যাকশন ঘরানার এ সিনেমা শুধু ভালো ব্যবসাই করেনি, বরং সানি দেওলের ক্যারিয়ারে নয়া মাইলফলক গড়ে তুলেছিল। ‘ঘায়েল’ সিনেমায় সানির পাশাপাশি অভিনয় করেছিলেন মৌসুমী চ্যাটার্জি, রাজ বব্বর, ওম পুরী, অমরিশ পুরীর মতো তারকারা। ২০১৬ সালে মুক্তি পায় ‘ঘায়েল: ওয়ানস এগেইন’। সিনেমাটিতে অভিনয় করেন শর্মিলা ঠাকুরের কন্যা অর্থাৎ সাইফ আলী খানের বোন সোহা আলী খান। সিনেমাটির শুটিং সেটে সানির গালে সজোরে চড় মেরেছিলেন সোহা। বলিপাড়ায় কানাঘুষা শোনা যায়, সেটে উপস্থিত সকলের সামনে বলিউডের ‘অ্যাংগ্রি ম্যান’ সানিকে থাপ্পড় মারেন এই অভিনেত্রী। সিনেমাটির একটি দৃশ্যে সানি প্রচণ্ড অশান্ত হয়ে পড়েন। তাকে কিছুতেই শান্ত করা যাচ্ছিল না। সিনেমাটিতে সানির মনোরোগ বিশেষজ্ঞের চরিত্রে অভিনয় করছিলেন সোহা আলী খান। চিত্রনাট্যের প্রয়োজনে সানিকে শান্ত করার জন্য তার গালে চড় মারেন সোহা। কিন্তু সোহা এমনভাবে চড় মেরেছিলেন, যা দেখে সকলে মনে করেছিলেন অভিনেত্রী অন্য কোনো কারণে সানির উপর রেগে রয়েছেন। ডেকান ক্রনিকল এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, শুটিং শেষে অভিনেত্রীকে সরাসরি প্রশ্ন করেন সানি দেওল। এত জোরে চড় মারার কারণ জিজ্ঞাসা করেন সোহাকে। সানির প্রশ্নে নিজের ভুল বুঝতে পারেন সোহা। অভিনেত্রী জানান, তিনি নিজের চরিত্রে এতটাই মগ্ন ছিলেন যে, সানিকে এতটা জোরে চড় মেরেছেন তা বুঝতেই পারেননি। পরে অবশ্য সানির কাছে ক্ষমাও চান সোহা। সিনেমার গল্পে সানি দেওল ‘অ্যাংগ্রি ম্যান’ হয়ে থাকলেও বাস্তব জীবনে শান্ত স্বভাবের। পরিস্থিতি বুঝতে পেরে ২২ বছরের ছোট সোহা আলী খানকে হাসিমুখে ক্ষমা করে দেন এই নায়ক।