বিএনপি নেতা মিলনের মুক্তির দাবী বিক্ষোভ মিছিল

রাজশাহী জেলা ও মহানগর বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের আয়োজনে বুধবার বিকেলেৈ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মাদার অবক ডেমোক্রেসি, সাবেক তিন তিন বারের সফল প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং ১ দফা দাবি আদায়ের আন্দোলনের বলিষ্ট নেতৃত্ব বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রাণ ও পূনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং পবা-মোহনপুরের নির্যাতিত নিপীড়িত গণমানুষের নেতা এডভোকেট শফিকুল হক মিলন এর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে এই বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

নেতৃবৃন্দ প্রায় পাঁচ হাজারের অধিক নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে রাজশাহী মহিলা কলেজের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে মালোপাড়া ও সোনাদিঘী দিয়ে সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট হয়ে নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন সড়ক প্রদক্ষিণ কওে ঐতিহাসিক ভূবেনমোহন পার্কে এসে মিছিল শেষ করেন। মিছিল থেকে সরকার পতন ও এডভোকেট শফিকুল হক মিলনের মুক্তির দাবীতে নানা ধরনের স্লোগান দিতে থাকেন নেতৃবৃন্দ। মিছিল শেষে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বোয়ালিয়া থানা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু।

উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা বিএনপি’র সদস্য অধ্যাপক আব্দুর রাজ্জাক, শেখ মকবুল হোসেন, জেলা বিএনপি’র সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন উজ্জল, মতিহার থানা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি আনসার আলী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক ডিকেন, শাহ্ মখ্দুম থানা বিএনপি’র সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাসুদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, রাজপাড়া থানা বিএনপি’রন সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন, বোয়ালিয়া থানা বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম মিলু, রাজশাহী মহানগর যুবদলের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, জেলা যুবদলের সাবেক সহ-সভাপতি সুলতান আহমেদ, রাজশাহী যুবদলের সদস্য সচিব রফিকুল ইসলাল রবি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সভাপতি জাকির হোসেন রিমন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবেদুর রেজা রিপন ও মহানগর ছাত্রদলের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মর্ত্তুযা ফামিন।

এছাড়াও রাজশাহী জেলা ও মহানগর বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সমাবেশে উপস্থিত নেতৃবৃন্দ বলেন, বিএনপি যখন এই ফ্যাসিস্ট ও জুলুমবাজ সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে এক দফা আন্দোলন করছে। ঠিক তখনই এই আন্দোলনে ভীত হয়ে বিনা কারনে বিএনপি নেতৃবৃন্দদের নামে হয়রানী মূলক মামলা দিয়ে কারাগারে প্রেরণ করছে। সেইসাথে নির্যাতন করছে। মামলা, হামলা ও নির্যাতন করে কোন লাভ হবেনা । বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে। সেই আন্দোলনের মাধ্যমেই এই বিনা ভোটের সরকারকে বিতারিত করে গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠা করা হবে বলে হুঁশিয়ারী দেন তারা। সেইসাথে বিএনপি নেতা এডভোকেট মিলনসহ সকল রাজবন্দির নি:শর্ত মুক্তি দাবী করেন নেতৃবৃন্দ।