গরমে ধুলা-ময়লায় চুলে খুশকির সমস্যা বাড়ে, কমাতে যা করবেন

মাথায় খুশকির সমস্যায় ভোগেননি এমন মানুষ পাওয়া কঠিন। নারী-পুরুষ প্রত্যেকেই খুশকির সমস্যায় ভুগে থাকেন। খুশকির সমস্যা সাধারণত শীতে বেশি হয়। তবে গরমেও বাতাসের ধুলা, দূষণ, রোদ, ঘামের কারণে খুশকির সমস্যা দেখা দেয়।

খুশকি একটি চর্মরোগ। এর প্রভাবে মাথার ত্বকে চুলকানি, চুলপড়া সমস্যা হতে পারে। চুল রুক্ষ হয়ে জৌলুস হারিয়ে ফেলতে পারে। তবে নিয়মিত যত্ন ও চিকিত্সা নিলে খুশকি সমস্যা থেকে পুরোপুরি দূরে থাকা যায়।
এখন বাইরে গেলেই ধুলা-ময়লা উড়ে এসে জুড়ে বসছে চুলে। গরমে মাথার ত্বক ঘেমে ময়লা হয় বেশি। এটা থেকে খুশকির সমস্যা বাড়ে। তাই প্রতিদিন বাইরে থেকে বাসায় ফিরে শ্যাম্পু দিয়ে চুল পরিষ্কার করতে হবে।

চুলে শ্যাম্পু করার পর ভালো কোনো কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। ভেজা চুলে বেশিক্ষণ থাকা যাবে না। চুল দ্রুত বাতাসে শুকিয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে এক থেকে দুবার চুলে ও মাথার ত্বকে তেল ম্যাসাজ করতে হবে।বাইরে চুল ঢেকে রাখা

এ সময় বাইরে গেলে চুল স্কার্ফ, ওড়না বা ক্যাপ দিয়ে ঢেকে রাখার চেষ্টা করতে হবে, যাতে বাইরের ধুলা-ময়লা চুলে না লাগে।

রোদ পরিহার করতে হবে। রোদে বেশিক্ষণ থাকা যাবে না।চুলের পুষ্টি জোগাতে খাবার

চুল খুশকিমুক্ত রাখতে চাইলে স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস বজায় রাখতে হবে। মাথার ত্বক ও চুল ভালো রাখতে বেশি বেশি শাক-সবজি খেতে হবে। প্রতিদিন পাতে চর্বিজাতীয় খাবার রাখতে পারেন। এতে চুল সিল্কি ও মজবুত হয়। খুশকিমুক্ত থাকা যায়।

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা

অপরিষ্কার চুলে খুশকির সংক্রমণ বেশি হয়। মাথায় ময়লা জমলে মৃত কোষ বেশি হয়। এ থেকে খুশকি বাড়ে। এ জন্য খুশকিমুক্ত থাকতে চাইলে নিয়মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। গোসলের পরই ভেজা চুলে বাইরে যাওয়া যাবে না। ভেজা চুল ময়লা বেশি টানে। ভেজা চুল বেঁধে রাখা যাবে না। এতে মাথার ত্বকে ছত্রাক ও ফাঙ্গাসের সংক্রমণ হয়। খুশকি বাড়ে।

খুশকি প্রতিরোধক শ্যাম্পু

এখন বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের খুশকি প্রতিরোধক কিটোকোনাজল শ্যাম্পু কিনতে পাওয়া যায়। এগুলো চুলের খুশকি দূর করতে কার্যকর। গোসলের সময় কিটোকোনাজলযুক্ত শ্যাম্পু চুলে লাগিয়ে পাঁচ মিনিট পর ধুয়ে ফেলতে হবে। নিয়মিত ব্যবহারে খুশকি কমে যাবে। যাঁরা নিয়মিত খুশকির সমস্যায় ভোগেন তাঁরা সপ্তাহে এক থেকে দুবার এই শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন।

লেবুর রস ব্যবহার

খুশকি সমস্যায় লেবুর রস উপকারী। সামান্য পানির মধ্যে দুই টেবিল চামচ লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে নিন। এরপর আঙুলের সাহায্যে মিশ্রণটি মাথার তালুতে ম্যাসাজ করুন। ১০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। সপ্তাহে দুবার ব্যবহারে খুশকির সমস্যা কমে আসবে।

মেথি ব্যবহার

চুলের খুশকি দূর করতে মেথি ব্যবহার করতে পারেন। এতে থাকা উপাদানের ফাঙ্গাস ও ছত্রাক দূর করার ক্ষমতা রয়েছে। দুই টেবিল চামচ টক দই, এক টেবিল চামচ মেথি বাটা ও সামান্য লেবুর রস মিশিয়ে ঘন মিশ্রণ তৈরি করুন। মিশ্রণটি মাথায় লাগিয়ে আধাঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে খুশকি কমে যাবে।