তীব্র গরমের মধ্যেও কুয়াশা, এটা আসলে কী

দেশজুড়ে চলছে তীব্র তাপপ্রবাহ। কিন্তু এ তাপপ্রবাহের মাঝেও দেশের কোথাও কোথাও দেখা যাচ্ছে শীতের সকালের মতো কুয়াশা। একটু দূরেই আর কিছু দেখা যায় না। রাস্তায় গাড়ি চলতে হয় হেডলাইট জ্বালিয়ে। দুই দিন ধরে ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ সড়ক এবং ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলাজুড়ে এই আবহাওয়া অনেকের মধ্যেই কৌতূহল জাগিয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শুধু ওই এলাকাতেই নয়, সপ্তাহখানেক আগে কুমিল্লা, পরে ফেনী, বাগেরহাটসহ দেশের আরও বেশ কয়েকটি এলাকায় ভোরের দিকে এমন আবহাওয়া দেখা গেছে। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, দেশের বিভিন্ন স্থানে কুয়াশার মতো যা দেখা যাচ্ছে, তাকে আসলে আবহাওয়াবিজ্ঞানের ভাষায় বলে ‘লো ক্লাউড’ বা নিচু মেঘ। বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেড়ে গেলে সাধারণত এ ধরনের মেঘের সৃষ্টি হয়। আবহাওয়াবিদ শাহীনুর ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিশ্বের অনেক দেশের মতো বাংলাদেশেও গ্রীষ্মকালে এ ধরনের নিচু মেঘ তৈরি হচ্ছে। এর ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, মূলত সারা দিন প্রচণ্ড দাবদাহের কারণে দেশের ভেতরের জলাশয় ও নদ-নদী থেকে প্রচুর পরিমাণে জলীয় বাষ্প তৈরি হচ্ছে। আর বাতাসে স্বাভাবিকের তুলনায় আর্দ্রতা কম থাকায় ওই জলীয় বাষ্প বাতাস শুষে নিচ্ছে। কিন্তু সন্ধ্যার পর বাতাসে আর্দ্রতা বাড়তে থাকে। সারা রাত ধরে আর্দ্রতা বেড়ে ভোরের দিকে তা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হয়ে যায়। শাহীনুর ইসলাম বলেন, ভোরের দিকে সূর্যের আলো পড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাতাসে থাকা ওই অতিরিক্ত জলীয় বাষ্প কুয়াশার মতো করে ভাসতে থাকে, যা দেখে নিচু মেঘের মতো মনে হয়েছে।